Tuesday - 7 - July - 2020

চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলকে বিদায় করে কোয়ার্টারে অ্যাতলেটিকো

Published by: সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক |    Posted: 3 months ago|    Updated: 3 months ago

An Images

সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক :

ঘরের মাঠে ৪৩ ম্যাচ পর প্রথম হারের স্বাদ পেল লিভারপুল। লিভারপুলকে হারিয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ।

বুধবার রাতে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগে নিজেদের মাঠে অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো ম্যাচটিতে ৩-২ গোলে হারে ইয়র্গেন ক্লপের শিষ্যরা। আর দুই লেগের অ্যাগ্রিগেটে ৪-২ গোলে শেষ আটে পা রাখে দিয়েগো সিমিওনের দল।

শেষ আটের টিকিট পেতে দ্বিতীয় লেগে অন্তত দুই গোল করতেই হতো লিভারপুলকে। সে লক্ষ্যে বুধবার রাতের ম্যাচে প্রথমার্ধেই জালের দেখা পেয়ে যায় অলরেডরা। ম্যাচের ৪৩ মিনিটে গোল করেন জর্জিনিও উইজনাল্ডুম। দুই লেগ মিলে চলে আসে ১-১ গোলের সমতা।

ফলে ম্যাচের বাকি সময়ে আর মাত্র এক গোল করলেই হতো তাদের। কিন্তু বারবার আক্রমণে উঠেও অ্যাতলেটিকোর জমাট রক্ষণের সঙ্গে পেরে ওঠেননি মোহামেদ সালাহ, রবার্তো ফিরমিনো, সাদিও মানেরা। বারবার তারা পরাস্ত হয়েছেন অ্যাতলেটিকো গোলরক্ষক ইয়ান অবলাকের কাছে।

ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিট সময়ে অন্তত ছয়টি জোরালো শটের পরও জালের দেখা পায়নি লিভারপুল। তাই বলে যে অ্যাতলেটিকো নীরব বসেছিল, তাও নয়। আদ্রিয়ানের ক্ষিপ্রতায় বেশ কয়েকবার অক্ষত থেকেছে অলরেডদের জাল। ফলে লিভারপুল ১-০তে এগিয়ে থেকেই শেষ হয় নির্ধারিত ৯০ মিনিট।

তবে দুই লেগ মিলে তখন ১-১ সমতা। তাই ফলাফল নিষ্পত্তির জন্য নেয়া হয় অতিরিক্ত ৩০ মিনিট। যেখানে চতুর্থ মিনিটেই লিভারপুলের পক্ষে গোল করেন রবার্তো ফিরমিনো। ফলে ম্যাচে ২-০ এবং দুই লেগ মিলে ২-১ গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। বাকি সময়টা নির্বিঘ্নে কাটাতে পারলেই হতো তাদের।

কিন্তু সেটি হতে দেননি মার্কোস লরেন্তে। অতিরিক্ত যোগ করা সময়ের সপ্তম মিনিটে ম্যাচে অ্যাতলেটিকোর পক্ষে প্রথম গোলটি করেন লরেন্তে। দুই লেগ মিলে তখন ২-২ সমতা এলেও, অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে এগিয়ে সফরকারীরাই।

তাদের পরিষ্কারভাবে এগিয়ে লরেন্তেই। অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিট সময়ের যে প্রথম ১৫ মিনিট, তার একদম শেষভাগে দলের পক্ষে দ্বিতীয় গোলটিও করেন এ স্প্যানিয়ার্ড। ম্যাচে তখন স্পষ্টত এগিয়ে অ্যাতলেটিকো। কোয়ার্টারে যে লিভারপুলের করতে হতো আরও দুই গোল।

শেষের ১৫ মিনিটে যা করতে পারেননি সালাহ-মানেরা। উল্টো ম্যাচের একদম শেষমুহূর্তে অ্যাতলেটিকোর পক্ষে তৃতীয় গোল করেন আলভারো মোরাতা। ফলে ম্যাচে ৩-২ এবং দুই লেগ মিলে ৪-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত হয় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের।